কেক পারফেক্ট হওয়ার কিছু টিপস

১. কেক তৈরির আগে একটা খাতায় লিখে নিবেন আজ কতটুকু পরিমাণ কেক তৈরি করতে চান আর তার জন্য কি কি দরকার( বিশ্বাস করেন এই কাজটা আপনার কেক তৈরিতে আপনাকে ৫০% এগিয়ে নিবে )

২. বেকিং প্যান টাতে তেল ব্রাশ করে কাগজ বিছিয়ে দিবেন।

৩. ফ্রিজ থেকে ডিম ১ ঘন্টা আগে বের করে নিবেন।

৪. যে হাড়িতে কেকটা বেক করবেন সেই হাড়িটা রেডি রাখবেন।

৫. কেকে তৈরির সব উপকরণ হাতের কাছে রাখবেন।

এই কাজ গুলো করার পর কেক বানানো শুরু করবেন।

৬. কেক কতটা সফট হবে তা নির্ভর করে ডিমের ফোমের উপর। ডিমের ফোমটা যদি পারফেক্ট হয় কেকটা এমনিতেই ফুলবে। চাইলে ডিমের সাদা অংশে ১ডিমেএ সাদা অংশে ১/৮চা.চা টারটার ইউজ করতে পারেন। (১০০ গ্রাম টারটার ৫০ টাকা)

৭.অনেকের কেক বেক করার সময় ফুলে আবার ঠান্ডা হলে চুপসে যায়। এর কারন হলো ময়দা কম হওয়া অথবা বেকিং পাউডার বেশি হওয়া। কেকের ব্যাটার এর ঘনত্ব এমন হবে যাতে চামচ দিয়ে তুললে ব্যাটারটা নিচে ভাজ ভাজ হয়ে পড়বে।

৮. বেকিং পাউডার এর পরিমানটা পারফেক্ট হতে হবে যেন কম বা বেশি না হয়। নয়তো কেক ফুলবে না।

৯.কেকের ব্যাটার তৈরি করে কখনো দেরি করা যাবে না। সাথে সাথে বেক করে নিতে হবে। যখন শুকনো উপকরণ আর লিকুইড উপকরণ মিশাবেন, তখন চুলাটা জ্বালিয়ে হাড়িটা প্রি হিট করে নেবেন, যাতে ব্যাটার রেডি করে সাথে সাথে বেক করতে পারেন।

১০.কেকের ব্যাটার রেডি করে যখন কেক মোল্ডে দিবেন তখন একটু উঁচু থেকে ব্যাটারটা ঢালবেন আর বেক করার আগে মোল্ডটা ২/৩ বার বারি দিবেন। এতে করে কেকের মধ্যে কোনো ফাকা থাকবে না।

১১.অনেকের সমস্যা কেকের ভিতরটা কাচা থাকে। যে হাড়িতে বেক করবেন সেই হাড়িটা চুলাতে ১০ মিনিট মিডিয়াম আচে প্রি হিট করবেন।কেকের সাইজ অনুযায়ী বেক হতে সময় লাগবে। বড় কেক হলে সময় বেশি আর ছোট কেক হলে সময় কম লাগে।

Leave a Comment