ছোলার ডালের পোলাঊ

নিরামিষ তালিকাতে এটি যেমন একটি পদ বাড়ায় তেমনই এর পুষ্টিগুণ শরীরের জন্য অতুলনীয় । এই রেসিপি আমি একটি জায়গা থেকে শিখেছি।

ঊপকরন—

পোলাঊ চালবাসমতি—দেড় কাপ

ছোলার ডাল ভাংগা টা -১ কাপ ছোট

তেল – পরিমান মত

আলু – ১টা বড় আলু চৌকোনা করে কাটা

টমেটো – ১টা বড় চৌকোনা করে কাটা

গরম মসলা গোটা – দারচিনি লং এলাচ তেজপাতা-১টাকরে

গোটা জিরা -হাফ চা চামচ

গরম পানি ৩ কাপ

পেঁয়াজ কুচি -২টেবিল চামচ

লবন স্বাদ মত

জয়ফল গুড়া বা গরম মসলা গুড়া হাফ চা চামচ

নামানোর আগে লাগবে।

ঘি-হাফ চা চামচ(কেঊ চাইলে নাও দিতে পারেন)

আদা বাটা ১ চা চামচ

কাঁচা মরিচ ২/৩টা

শুকনা মরিচ গোটা ১/২ টা।

প্রনালী—

প্রথমে চাল ধুয়ে ৩০মিনিট রেখে দিতে হবে।ডাল আগেই ধুয়ে ২ ঘন্টা একটু পানিতে রেখে দিতে হবে।

এবার কড়াইয়ে তেল দিয়ে আলু গুলি একটু লাল করে ভেজে নিতে হবে।ঊঠিয়ে রেখে দিতে হবে।

এবার কড়াইয়ে তেল দিয়ে গরম মসলা ,গোটা জিরা দিয়ে পেয়াজ কুচি আদা বাটা দিয়ে একটু ভেজে নিতে হবে ।এরপর টমেটো কুচি দিতে হবে।

এবার মসলাতে ডাল দিয়ে দিতে হবে এবং একটু হলুদ দিয়ে ভুনতে হবে ।ভেজে রাখা আলু দিয়ে দিতে হবে।

এবার কাঁচামরিচ ফালি এবং ২/৩ টা গোটা শুকনা মরিচ দিতে হবে।লবন দিতে হবে।

এবার চাল ও পানি দিয়ে ১৫ মিনিট ঢেকে দিতে

হবে।এবার ঢাকনা তুলে দেখতে হবে ডাল সেদ্ধ হলো কিনা এবার একটু জয়ফল গুড়া বা গরম মশলা গুড়া বা ঘি দিয়ে দমে রেখে দিতে হবে।

বেশ হয়ে গেল গরম গরম ছোলার ডালের পোলাঊ।

টিপস—

ছোলার ডাল সেদধ হতে সময় নেয় তাই আগেই ভিজিয়ে রাখতে হবে।

অনেক ক্যালরী এক সাথে তাই এটাই একটা কমপ্লিট খাবার ।

হলুদ একদম কম দিবেন ।

বাড়ন্ত বয়সের শিশু ও কিশোর কিশোরীদের জন্য পুষ্টিকর একটি খাবার।

গর্ভবতী মা ও প্রসুতী মা রাএখেতে পারবে।

সংগে শুধু মাএ আচার বা সালাদ যোগ করুন

লেবু নিতে ভুলবেন না।

কিডনী রোগী রা ডাল জাতীয় খাবার কম খাবেন।

Leave a Comment